fr-filmstreaming.com filmstreaming

রবিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

যৌতুক না পেয়ে পুত্রবধূর চুল কেটে শ্বশুর আটক

news-image

সিরাজগঞ্জ (উল্লাপাড়া) প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় যৌতুক না পেয়ে পুত্রবধূকে পিটিয়ে চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগে হবিবুর রহমান নামে এক বৃদ্ধকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে উপজেলার উধুনিয়া ইউনিয়নের মহেশপুর গ্রামের বাড়ি থেকে আটক করা হয়। এসময় ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যরা পালিয়ে গেছেন।

স্থানীয়রা জানায়, যৌতুক হিসেবে জমি না দেওয়ায় গ্রামের হবিবুর রহমানের ছেলে শফিকুল ইসলামের স্ত্রী নার্গিস খাতুনকে রোববার রাতে হবিবুর রহমান ও তার পরিবারের ৪ সদস্য মিলে বেধড়ক মারপিট করেন। এসময় নার্গিসের চুল কেটে দেওয়া হয়। গুরুতর আহতাবস্থায় নার্গিসকে তার স্বামী উদ্ধার করে সোমবার সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

একই গ্রামের হাজী ইব্রাহিমের মেয়ে নার্গিস খাতুনের অভিযোগ, ১০ বছর আগে একই গ্রামের শফিকুলের সঙ্গে প্রেম করে তার বিয়ে হয়। বিয়েটি মেনে নিতে পারেনি নার্গিসের শ্বশুর বাড়ির লোকজন। ফলে দীর্ঘদিন ধরে নানা অজুহাতে শ্বশুর বাড়িতে নার্গিসকে মানসিক ও শারীরিক ভাবে নির্যাতন করা হয়। কিছুদিন আগে স্বামীর বাড়ির পাশে থাকা তার (নার্গিস) বাবার একখণ্ড ভিটে শ্বশুর হবিবুর রহমানের নামে লিখে দেওয়ার জন্য নার্গিসের ওপর চাপ সৃষ্টি করা হয়।

নার্গিসের বাবা অপারগতা প্রকাশ করলে রোববার রাতে শ্বশুর ও তার লোকজন মিলে তাকে নির্যাতন করেন এবং চুল কেটে দেন। এই ঘটনায় শ্বশুরের সঙ্গে অংশ নেন পরিবারের সদস্য শরিফ, জামাল, আম্বিয়া ও ফতে নামের আরো চারজন।

এদিকে খবর পেয়ে উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দীপক কুমার দাশ সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে আহত নার্গিস খাতুনকে সোমবার সন্ধ্যায় দেখতে যান। তিনি নার্গিসের কাছ থেকে তার ঘটনার বিস্তারিত শোনেন।

দীপক কুমার দাশ গণমাধ্যম কর্মীদেরকে জানান, নার্গিসের মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতেই তিনি ইতোমেধ্যেই নার্গিসের শ্বশুর হবিবুর রহমানকে আটক করেছেন। অপর আসামিদেরও ধরার চেষ্টা চলছে।