বুধবার, ১৫ই জুলাই, ২০২০ ইং ৩১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিএনপির এমপিদের বাজেট প্রত্যাখ্যান

news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২০২০-২১ অর্থ বছরের বাজেট প্রত্যাখ্যান করেছেন বিএনপির সংসদ সদস্যরা। বুধবার জাতীয় সংসদের মূল গেটের সামনে বাজেট প্রতিক্রিয়া নিয়ে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তারা।

বিএনপির সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেন, ‘গত একশো বছরে পৃথিবীতে এই দুর্যোগে মহামারি আমরা দেখিনি। গতকার আমরা দেখেছি বাজেট পাশ হয়েছে। জনগণকে ফাঁকি দেয়ার জন্য এই বাজেট। আমরা যারা মূল বিরোধী দল বিএনপির সংসদ সদস্য আছি, আমরা যাতে সংসদে এই বাজেট নিয়ে কথা না বলতে পারি, সমালোচনা করতে না পারি- সেজন্য মাত্র একদিনের জন্য সাধারণ বাজেট আলোচনা করা হয়। পৃথিবীর ইতিহাসে এমন আলোচনাবিহীন বাজেট কখনো পাশ হয় নাই। আজকে এই মহান সংসদের সামনে দাঁড়িয়ে বলছি, আমরা জনগণের পক্ষে এই বাজেট প্রত্যাখান করছি।’

বিএনপির আরেক সাংসদ হারুনুর রশীদ বলেন, ‘বিএনপির সাংসদদের মধ্যে আমাকে সংসদে খুব অল্প সময়ের জন্য বাজেট বক্তৃতায় কথা বলার সুযোগ দেয়া হয়েছিল। এই বাজেটের বক্তৃতায় এক পর্যায়ে স্পীকার আমার মাইক বন্ধ করে দিয়েছেন। আমরা বাজেট ঘোষণার আগে একটা প্রস্তাব দিয়েছিলাম যে, এই বাজেট অধিবেশন ভার্চুয়াল করার জন্য। কিন্তু সেটা করা হয়নি। আমাদের সাংসদদের এই বাজেট প্রতিক্রিয়া নিয়ে কথা বলার সুযোগ থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা যে কয়েকজন সদস্য সেটা বলার চেষ্টা করি সেখানে আমাদের সঠিক সময়টুকু আমাদের দেয়া হচ্ছে না। এই সংকটের মধ্যে যারা জাতিকে পরামর্শ দিতে চায় তাদেরকে সরকার তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করছে। আমরা সংসদে দাড়িয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি জানিয়েছি এবং গোটা স্বাস্থ্য বিভাগকে সংস্কারের কথা বলেছি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী এই নিয়ে কোন কথাই বলেনি। আমরা বিএনপির পক্ষ থেকে এই সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি, অতিসত্তর করোনা মোকবিলার জন্য আমাদের রোডম্যাপ দিতে হবে। আমরা অবিলম্বে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করছি এবং গতকাল যে অপ্রত্যাশিত এবং অকল্পনীয় ঘোষণা করা হয়েছে সেটা প্রত্যাখ্যান করছি।’

লিখিত বক্তব্যে বিএনপির সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেন, ‘বাজেট অধিবেশন সংসদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অধিবেশন। এই অধিবেশনে দীর্ঘ আলোচনার মাধ্যমে বাজেটের পুঙ্খানুপুঙ্খ বিশ্লেষণ জাতির স্বার্থেই খুব জরুরি। করোনাকালীন স্বাস্থ ঝুঁকির কথা বিবেচনায় নিয়ে এবারের বাজেট অধিবেশন অতি সংক্ষিপ্ত করতে চেয়েছে সরকার। কিন্তু আমাদের পক্ষ থেকে এই অধিবেশন ডিজিটাল বা ভার্চুয়ালি করার প্রস্তাব দিলেও তা গ্রহণ করা হয়নি। গত ১৫ জুন অনির্ধারিতভাবে ২৩ জুন পর্যন্ত বর্তমান অধিবেশন মুলতবি করে মাত্র এক দিন (২৩ জুন) বাজেটের সাধারণ আলোচনা করা হয়েছে। এটা অকল্পনীয়। আমাদের বিশ্বাস করোনার মতো ভয়ঙ্কর একটা সংকটে যে যাচ্ছে। তাই বাজেট প্রস্তাব করা হয়েছে, সেটার সমালোচনা এড়ানোর জন্যই অধিবেশন সংক্ষিপ্ত করে তড়িঘড়ি করে শেষ করতে চেয়েছে সরকার।’

এসময় বিএনপির সাংসদ মোশররফ হোসেন, আমিনুল ইসলাম ও বিএনপি চেয়াপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শায়রুল কবির খান উপস্থিত ছিলেন।

এ জাতীয় আরও খবর

চির‌নিদ্রায় শা‌য়িত হ‌লেন এন্ড্রু কি‌শোর

সাহেদ বোরকা পরে নৌকায় পালিয়ে যাবার চেষ্টা করেছিল

সাহেদকে আটক করেছে র‍্যাব

কক্সবাজার সৈকতে যুবকরা প্রাণ বাঁচাল আটকেপড়া ১৬০ কচ্ছপের

বহু দেশ করোনা প্রতিরোধে ভুল পথে এগোচ্ছে : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

গাড়িবহরে হামলায় পাকিস্তানে ৮ সেনা নিহত

রিজেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুদ পারভেজ গ্রেফতার

মুখোমুখি করা হবে ডা. সাবরিনা ও আরিফকে

বগুড়ায় আ’লীগের সাহাদারা বিপুল ভোটে বিজয়ী

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় বিমানকে ১ কোটি টাকা জরিমানা করেছে সৌদি আরব

শনিবার থেকে স্টেডিয়ামেই অনুশীলন করতে পারবেন ক্রিকেটাররা

নাটকেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন চিত্রনায়িকা মৌমিতা মৌ