শুক্রবার, ৫ই জুন, ২০২০ ইং ২২শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

লকডাউন ছাড়া উপায় ছিল না, বললেন মোদি

news-image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : নভেল করোনাভাইরারেস প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে মানুষের জীবন বাঁচাতে দেশজুড়ে লকডাউনই একমাত্র সমাধান ছিল বলে জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

রোববার রেডিওতে দেওয়া ভাষণে জাতির উদ্দেশে তিনি একথা জানান বলে এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

মোদি বলেন, মানুষ হয়তো ভাবছে আমি কেমন ধরনের প্রধানমন্ত্রী… কিন্তু লকডাউন আমাদের সামনে থাকা একমাত্র সমাধান। অনেকেই লকডাউন লঙ্ঘন করছেন। এটা দুঃখজনক। সারা বিশ্বেই এমন ভুল করে চলেছেন বহু মানুষ।

যারা লকডাউন মানছেন না তারা নিজেদের জীবন নিয়ে খেলছেন বলেও ‘মন কি বাত’-এ মন্তব্য করেন তিনি।

নরেন্দ্র মোদি তার ভাষণে সাধারণ মানুষের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে বলেন, আমি জাতির কাছে ক্ষমা চাইছি কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য। এর ফলে সাধারণ মানুষকে অসুবিধার মুখে পড়তে হয়েছে। কিন্তু আমাকে এই সিদ্ধান্ত নিতেই হত আপনাদের রক্ষা করার জন্য।

করোনার বিস্তার ঠেকাতে ২১ দিনের জন্য লকডাউন রয়েছে ভারত। দেশটিতে লাফিয়ে বাড়ছে কোভিড-১৯ সংক্রমণে আক্রান্তের সংখ্যা। ভারতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত ৯৭৯ জন, মৃতের সংখ্যা ২৫।

গত মঙ্গলবার দেশজুড়ে লকডাউনের ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তারপর থেকেই বড় শহরে কাজ করতে আসা বিভিন্ন রাজ্যের শ্রমিকরা প্রবল অসুবিধায় পড়েন। রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর তাদের খাদ্যের জোগানেও টান পড়ে।

সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে মোদি তার ভাষণে বলেন, সামাজিক দূরত্ব বাড়িয়ে মানসিক দূরত্ব কমান। সামাজিক দূরত্বের অর্থ এই নয় যে সামাজিক যোগাযোগ শেষ করে দেওয়া। এটাই সময় আপনার সম্পর্কগুলিকে নতুন জীবনদান করা।

নরেন্দ্র মোদি বলেন, প্রত্যেক ভারতীয়ই এখন লকড হয়ে রয়েছেন। কিন্তু কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে শক্তিশালী হয়ে উঠব এর ফলে। এই লড়াই অভূতপূর্ব ও চ্যালেঞ্জিং। এই লড়াইয়ে ভারতীয়রা যা পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন, তাদের ধৈর্য আমাদের সাহায্য করবে। দরিদ্রদের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে ও আমাদের স্পর্শকাতর হতে হবে। ভারত এটা করতে পারে।