রবিবার, ২৯শে মার্চ, ২০২০ ইং ১৫ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রোগের কথা গোপন রাখা ঠিক নয়

news-image

স্বাস্থ্য ডেস্ক : যাপিতজীবনে আমরা এমন কিছু গোপন রোগে আক্রান্ত হই, সেসব রোগের কথা পরিবার তো দূরে থাক, চিকিৎসকের কাছেও গোপন রাখার চেষ্টা করি, যা মোটেও উচিত নয়। বিশেষ করে নারীরা পুরুষ ডাক্তারের সম্মুখীন হলে আর পুরুষ রোগী নারী ডাক্তারের শরণাপন্ন হলে রোগ সম্পর্কে মোটেও ধারণা দিই না। যেমন-

পিরিয়ড অনিয়ম : অনিয়মিত পিরিয়ড, দীর্ঘ সময় ধরে পিরিয়ড, তলপেটে ব্যথা ইত্যাদি বিষয় চিকিৎসকের কাছে বলতে লজ্জা পাবেন না। কারণ অধিকাংশ গাইনি সমস্যা পিরিয়ডের ওপর প্রভাব ফেলে। তাতে আপনার রোগ সম্পর্কে চিকিৎসক বিস্তারিত ধারণা পাবেন।

গর্ভপাত : অনাকাক্সিক্ষত সন্তান নিতে না চাইলে অনেকে গর্ভপাত করিয়ে ফেলেন। কিন্তু পরে কোনো গাইনি সমস্যা হলে চিকিৎসকে গর্ভপাতের কথা জানাতে চান না। গর্ভপাতের কারণে বিভিন্ন ধরনের গাইনি সমস্যা দেখা দেয়। তাই তথ্য গোপন না করে চিকিৎসককে সব বলাই বুদ্ধিমানের কাজ।

জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি : যে পদ্ধতিতে জন্মনিয়ন্ত্রণ করেন, তা গাইনি চিকিৎসককে জানানো ভালো। এটি গোপন রাখলে শারীরিক সমস্যা নির্ণয় করা চিকিৎসকের জন্য কঠিন হয়ে পড়ে।

যৌনাকাক্সক্ষার ঘাটতি : নানা কারণে স্বাভাবিক যৌনাকাক্সক্ষার ঘাটতি থাকতে পারে। এটা দোষের কিছু নয়। যদি কেউ যৌনসঙ্গীকে পরিপূর্ণভাবে তৃপ্ত করতে না পারেন, তা হলে বিশেষজ্ঞের সঙ্গে খোলাখুলি আলোচনা করুন। কারণ অনেক সময় গাইনি সমস্যার কারণে যৌনাকাক্সক্ষার ঘাটতি হতে পারে, যা অবহেলার বিষয় নয়। যৌনরোগের কারণেও সমস্যা দেখা দিতে পারে। রোগ গোপন না করে তাই চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করুন।

লেখক : হোমিও চিকিৎসক